২৫ বছরেই চার বিয়ে, বউ চলে যাওয়ায় যুবক নিলেন ঘটকের প্রাণ

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে বউ চলে যাওয়ায় ঘটককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক যুবকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত যুবকের নাম আলমাস (২৫)। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার দিগড় ইউনিয়নের মানাজী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বৃদ্ধের নাম মো. আব্দুল জলিল (৬৫) । সে একই গ্রামের বাসিন্দা। অভিযুক্ত আলমাসের বাবার নাম শহিদুল। আলমাস একটি করাতকলে কাজ করেন। নিহতের ভাগনে আব্দুল বাছেদ জানান , এর আগেও তিনটি বিয়ে করেছিলেন আলমাস। কিন্তু একটিও টেকেনি। পরে ২০১৯ সালে রসুলপুর ইউনিয়নের প্যাঁচার আটাগ্রামে আলমাসকে বিয়ে করান আমার মামা। তাদের ঘরে একটি মেয়েরও জন্ম হয়। ২০২১ সালে চতুর্থ স্ত্রীও চলে যান। এ নিয়ে আমার মামা ঘটক আব্দুল জলিলের ওপর চাপা ক্ষোভ ছিল আলমাসের।

সে আরো বলে, গতকাল দুপুরে জোহরের নামাজ শেষে আলমাসের দাদি আয়াতন বেগমের ঘরে পান খেতে বসেন আমার মামা। এ সময় ঘরে ঢুকে বউ এনে দেওয়ার কথা বলেন আলমাস। এ নিয়ে দুজনের কথা কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে ঘরে থাকা ধারালো দা দিয়ে মামার মাথায় ও গলায় এলোপাতাড়ি কোপ দিতে থাকেন তিনি। এতে ঘটনাস্থলেই আমার মামা মারা যান।

ঘাটাইল থানার ওসি মো. আজহারুল ইসলাম সরকার জানান, মরদেহ উদ্ধার করে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.