রক্ত দিয়ে বাঁচিয়ে তুলে নিয়ে টানা ২ দিন ধ’র্ষণ!

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় দুদিন আটকে রেখে গৃহবধূকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক যুবকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত রঞ্জিত হাওলাদারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে ফতুল্লার রেললাইন বটতলা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ৩৫ বছর বয়সী রঞ্জিত পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার পূর্ব সুবিধাখালির সঞ্জয় হাওলাদারের ছেলে। এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে রঞ্জিতের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী ৩১ বছরের গৃহবধূ। তার স্বামীর বাড়ি মির্জাগঞ্জ উপজেলায়। তিনি তিন সন্তানের জননী।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে স্বামীর বাড়িতে থাকছিলেন গৃহবধূ। চলতি বছরের ২০ মার্চ তিনি অসুস্থ হয়ে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি হন। সুস্থতার জন্য রক্তের প্রয়োজন হয় তার। পরে ব্লাড ডোনার্স সংগঠনের হয়ে তাকে রক্ত দেন রঞ্জিত। ওই সময় কৌশলে গৃহবধূর মুঠোফোন নম্বর সংগ্রহ করেন এ রক্তদাতা। এরপর কল দিয়ে প্রায়ই গৃহবধূকে উত্ত্যক্ত করতেন রঞ্জিত। দিতেন প্রেমের প্রস্তাবও। কাজের সুবাদে স্বামী যশোরে থাকায় সন্তানদের নিয়ে একাই থাকতেন ওই গৃহবধূ। কিন্তু রঞ্জিতের বখাটেপনা বেড়ে যাওয়ায় অতিষ্ঠ হয়ে সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়ি ফতুল্লা মডেল থানা সীমান্তের পাগলা নন্দলালপুর এলাকায় চলে আসেন।

বিষয়টি জানতে পেরে ২১ সেপ্টেম্বর বিকেলে পাগলা নন্দলালপুর এলাকায় আসেন রঞ্জিত। পরে কৌশলে বাসা থেকে অটোরিকশায় করে গৃহবধূকে ফতুল্লার রেললাইন বটতলা এলাকায় নিয়ে যান তিনি। সেখানে দুদিন আটকে রেখে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। ২২ সেপ্টেম্বর বিষয়টি শুনে পুলিশকে জানান ভুক্তভোগীর মা। পরে রাতেই অভিযান চালিয়ে রঞ্জিতকে গ্রেফতারসহ ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার এসআই গোলাম মোস্তফা জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ফতুল্লার রেললাইন বটতলার হাজী অলিউল্লার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে রঞ্জিতকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.