ফাঁসির অভিনয় করতে গিয়ে ঝরলো কিশোর টিকটকারের প্রাণ

এবার টিকটকের জন্য মোবাইলে ফাঁসির ভিডিও তৈরি করতে গিয়ে গলায় ফাঁস লেগে পল্লব দেবনাথ (১৭) নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।গত শনিবার ১৭ সেপ্টেম্বর দিনগত রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টার দিকে ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের মহাদেব বাড়িতে মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে। নিহত পল্লব দেবনাথ ফুলগাজীর শ্রীপুর গ্রামের মহাদেব বাড়ির কেশব দেবনাথ ও নিলু দেবনাথের ২য় পুত্র। সে মুন্সিরহাট আলী আজম উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ভিডিও রেকর্ড চালু অবস্থায় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। ভিডিওতে দেখা যায় একাধিকবার ফাঁসির অভিনয়ের চেষ্টা করছিল সে। শেষবার ফ্যানের সঙ্গে গামছা বেধে ফাঁসির চেষ্টা করলে সত্যি সত্যি তার গলায় ফাঁস লেগে যায়।

এ সময় বাঁচার চেষ্টা করেও পল্লব গলা থেকে গামছা খুলতে ব্যর্থ হন। পরে ডাকাডাকি পর কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করলে পল্লবের ঝুলন্ত দেহ দেখতে পায় পরিবার। পুলিশকে খবর দিলে ফুলগাজী থানা পুলিশ মরদেহ ও মোবাইল উদ্ধার করে। এদিকে পরিবার সূত্রে জানা যায়, পল্লব টিকটকে আসক্ত ছিল। পরিবারের সদস্যদের অনুপস্থিতি ঘরের দরজা বন্ধ করে ফাঁসির দৃশ্যের অভিনয় করতে চেয়ছিল সে। তার মোবাইলে ধারণকৃত ভিডিওতে দেখা যায়, রেকর্ড চালু করে ২ বার ফাঁসির চেষ্টা করে সে। তৃতীয়বারের সময় ফাঁসির চেষ্টা করতে গিয়ে গলায় ফাঁস লেগে তার মৃত্যু হয়।

এ সময় নিহতের ভগ্নীপতি পলাশ ভৌমিক বলেন, খুবই চঞ্চল প্রকৃতির ছেলে ছিল পল্লব। আমরা ধারণা করছি ফাঁসির দৃশ্য কেমন হয় এমন কৌতূহল থেকে ভিডিও ধারণ করতে গিয়ে এমন দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে সে। কিছুদিন আগেও হাতের মধ্যে অহেতুক ব্যান্ডেজ লাগিয়ে বন্ধুদের চমকে দিয়েছিল। সে হয়তো এবারও ফাঁসির দৃশ্য ভিডিও করে বন্ধুদের দেখাতে চেয়েছিল। এ বিষয়ে ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মঈন উদ্দিন জানান, কিশোরের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

নিহতের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের ভিডিওতে দেখা যায় সে ২/৩ বার ফাঁসির দৃশ্য ধারণ করার চেষ্টা করে। তৃতীয়বার গলায় ফাঁস লেগে তার মৃত্যু হয়। তার পিতা কেশব দেবনাথ বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.