বিয়ের ৮ বছর পর স্ত্রী জানলেন স্বামী আসলে নারী

বিয়ের ৮ বছর পর স্ত্রী হঠাৎ জানলেন তার স্বামী লিঙ্গ পরিবর্তন সার্জারি করিয়ে মেয়ে থেকে পুরুষে রূপান্তরিত হয়েছেন। বিষয়টি গড়িয়েছে থানা পর্যন্ত। এ ঘটনায় মামলাও ঠুকে দিয়েছেন স্ত্রী। অভিযোগকারী নারীর নাম শীতল। প্রথমত স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় বিকৃত যৌনাচারের অভিযোগ এনেছেন তিনি। তার বাড়ি ভারতের গুজরাটের গোত্রী থানায়। স্বামী বিরাজ দিল্লিতে থাকেন। এদিকে পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালে বিয়ে হয়েছিলো এই দম্পতির। তারা মধু চন্দ্রিমায় কাশ্মিরে বেড়াতে যান। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই অভিযুক্ত স্বামী বিরাজের শারীরিক সম্পর্কে স্থাপনে বেশ অনীহা দেখতে পান স্ত্রী।

এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে স্বামী বিরাজ তাকে বলেন, কয়েক বছর আগে রাশিয়াতে একটি সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়ে শারীরিক সম্পর্ক করার সক্ষমতা হারিয়েছেন তিনি। কিন্তু ছোট্ট একটি সার্জারির মাধ্যমে সমস্যার সমাধান সম্ভব। এদিকে শীতল পুলিশকে জানান, তার সাথে বিরাজের ৯ বছর আগে একটি ম্যাটরিমনিয়াল সাইটে পরিচয় হয়েছিলো। বিরাজ তার দ্বিতীয় স্বামী। ২০১১ সালে প্রথম স্বামীকে হারিয়েছিলেন তিনি। আগের ঘরে তার ১৪ বছরের এক মেয়ে রয়েছে।

গত ২০২০ সালে বিরাজ স্ত্রীকে জানান, অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ওজন কমাতে তিনি কলকাতা গিয়েছিলেন। পরে অবশ্য প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ করেন। তিনি জানান, সেখানে পুরুষাঙ্গ স্থাপনের জন্য অস্ত্রোপচার করিয়েছেন।

এ বিষয়ে গোত্রী থানার পুলিশ পরিদর্শক এম কে গুর্জার বলেছেন, অভিযুক্ত ব্যক্তিকে দিল্লি থেকে বদোদোরায় আনা হয়েছে। তিনি আগে বিজয়িতা নামে পরিচিত ছিলেন। সূত্র: এনডিটিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published.