প্রথম পরীক্ষা দিয়েই বিয়ের পিঁড়িতে দুই এসএসসি শিক্ষার্থী

অবশেষে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে সারাদেশে শুরু হয়েছে এসএসসি ও সমমানের দাখিল পরীক্ষা। এদিন টাঙ্গাইলের মধুপুর আদর্শ ফাজিল মাদ্রাসার দুই শিক্ষার্থী কোরআন মাজিদ পরীক্ষা দিয়েই আজ শুক্রবার বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছে। তাদের নাম খন্দকার মিতু ও রাশিদা রাশি। খন্দকার মিতু মধুপুর পৌর এলাকার পুন্ডুরা গ্রামের খন্দকার মনির হোসেন ওরফে ময়নার মেয়ে। আর রাধানগর ব্রাহ্মণবাড়ী ফাজিল মাদ্রাসার রাশিদা রাশি ওই গ্রামেরই রাজ্জাকের মেয়ে। অনেকটা মেজবানি আয়োজনে ধুমধামে আজ শুক্রবার দুপুরে মিতুর বিয়ে হতে যাচ্ছে পাশের উপজেলা ঘাটাইলে আর রাশিদার পাশের গ্রাম নাগবাড়ীতে। এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে সংশ্লিষ্টরা।

জানা গেছে, মধুপুর আদর্শ ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে ১৯টি মাদ্রাসা ৪২৮ জন পরীক্ষার্থীর পরীক্ষায় বসার কথা ছিল। কেন্দ্র সচিব ও কেন্দ্র মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ জানান, চারজন ছেলে ও আটজন মেয়ে মিলে ১২ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। দুর্ঘটনায় আহত একজন ছাড়া বাকিদের সবারই বিয়ে হয়ে গেছে। বিয়ের পর পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে এমন পরীক্ষার্থী প্রায় সব মাদ্রাসার তালিকাতে থাকার তথ্য মিলেছে। কেন্দ্র সচিব অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ আরও জানান, তার কেন্দ্র প্রতিষ্ঠানের কেউ অনুপস্থিত না থাকলেও ২৪ জনের অন্তত চারজন আছে বিবাহিত। তার একজন সন্তানসম্ভবা।

এদিকে রাধানগর ব্রাহ্মণবাড়ী ফাজিল মাদ্রাসার ৩৯ জন পরীক্ষার্থীর অনেকেই বিয়ের পরও পরীক্ষা দিচ্ছে। এ প্রতিষ্ঠানেরর একজন সন্তানসম্ভবা। জলছত্র দাখিল মাদ্রাসার শরীফা পরীক্ষা দিচ্ছে সন্তান নিয়েই। শালিখা ফাজিল মাদরাসার ২৭ জনেও বিবাহিত আছে। গাংগাইর নজমুল ইসলাম ফাজিল মাদরাসাসহ প্রায় মাদরাসার মেয়েরা বিযের পরও পরীক্ষা দিচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা পরীক্ষা চলাকালীন মেয়ের বিয়ের আয়োজনকে অভিভাবকদের কাণ্ডজ্ঞানহীন সিদ্ধান্ত বলে অভিহিত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.