ভিডিও ছড়ানোর ভয় দেখিয়ে যা করতো যুবক, অবশেষে ধরা

কুমিল্লায় ছিন্নমূল ও দরিদ্র পরিবারের তিন শিশুকে যৌন নির্যাতন করা হয়েছে। যৌন নির্যাতনের অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।ভিকটিমদেরকে সংরক্ষিত ভিডিওর ভয় দেখিয়ে পুনরায় যৌন নির্যাতন করতেন তিনি। গ্রেফতার যুবক সুমন মিয়া কুমিল্লা দেবিদ্বার উপজেলার ছেচড়াপুকুরিয়া

গ্রামের বাসিন্দা। সোমবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা র‌্যাব ১১ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন।মেজর সাকিব জানান, ৪ আগস্ট একজন লোক এসে অভিযোগ করেন কুমিল্লা রানীরবাজার বিস্কুট ফ্যাক্টরিতে কর্মরত তিন শিশুকে যৌন নির্যাতন করে ওই ফ্যাক্টরিতে কর্মরত সুমন মিয়া। বিষয়টি আমলে নিয়ে র‌্যাব ছায়া তদন্ত শুরু

করে। গ্রেফতার আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদে তিনি স্বীকার করেন, সে প্রায় ২ বছর যাবৎ বিসিক শিল্পনগরীর একটি বিস্কুট ফ্যাক্টরিতে কর্মরত আছেন। অল্প বয়স্ক ছেলেদের যৌন নির্যাতন তার এক ধরনের নেশায় পরিণত হয়েছে। তিনি বিভিন্ন সময়ে অল্প বয়স্ক ছেলেদের উক্ত বিস্কুট ফ্যাক্টরিতে কাজের জন্য নিয়ে আসতো। পরবর্তীতে তাদের সঙ্গে মামা-ভাগ্নের

সম্পর্ক তৈরি করে তাদেরকে বিভিন্ন সময় ভাড়া বাসায় নিয়ে ভয় দেখিয়ে যৌন নির্যাতন করতো। তা ভিডিও ধারণ করে রাখত। যৌন নির্যাতনের ছবি ও ভিডিও নিজের মোবাইলফোনে সংরক্ষণ করে রাখে। এই ঘটনা কাউকে না বলার জন্য ভয় দেখায়। পরবর্তীতে বিভিন্ন সময় ভিকটিমদেরকে সংরক্ষিত ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে পুনরায় যৌন নির্যাতন করে।

তিনি আরো স্বীকার করেন, রেলস্টেশন ও বাস স্টেশনের ছিন্নমূল অল্প বয়সী ছেলেদের বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তার ভাড়া বাসায় নিয়ে যৌন নির্যাতন করতেন। পরবর্তীতে গ্রেফতার আসামির মোবাইল ফোন পর্যালোচনা করে তার মোবাইলে বিভিন্ন অশ্লীল ছবি ও ভিডিও পাওয়া যায়। যা তিনি মেসেঞ্জার গ্রুপে আপলোড করতেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.