যে কারণে পিরিয়ডের ব্যথায় কাতরাচ্ছেন ভারতের পুরুষরা

নারীদের মাসিক বা পিরিয়ড ভারতসহ দক্ষিণ এশিয়ার অনেক দেশেই এখনও একটি নিষিদ্ধ বিষয়। তবে এই ধ্যানধারণা পাল্টাতে ভারতের কেরালা রাজ্যে একটি ক্যাম্পেইন চালু করেছে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন। এই ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে একটি সিমুলেটর নিয়ে এরনাকুলাম জেলার বিভিন্ন শপিংমলে ও কলেজে যাচ্ছেন আয়োজকরা। এই সিমুলেটরের সাহায্যে পিরিয়ডের ব্যথা অনুভব করতে পারবেন পুরুষরাও। ক্যাম্পেইনের একটি সাম্প্রতিক ভিডিওতে দেখা গেছে, সিমুলেটরের মাধ্যমে অনুভব করা ব্যথায় কাতরাচ্ছেন পুরুষরা, আর তা দেখে ভীষণ মজা পাচ্ছেন নারীরা।

এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে পিরিয়ড নিয়ে খোলাখুলিভাবে কথা বলাকে সমাজে আরো সহজভাবে গ্রহণ করা হবে বলে আশা করছেন আয়োজকরা।

এক শপিংমলে এই সিমুলেটর ব্যবহার করার পর সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার শরণ নাইর বলেন, ‘এটি খুবই যন্ত্রণাদায়ক ছিল। আমি আর কখনোই এই অভিজ্ঞতার ভেতর দিয়ে যেতে চাই না।’ সিমুলেটরে দুটি তার রয়েছে, যা একসাথে দু’জন মানুষের শরীরের সাথে যুক্ত করা সম্ভব। একটি ডায়ালের মাধ্যমে লেভেল এক থেকে লেভেল ১০-এর ব্যথা অনুভব করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।

‘কাপ অব লাইফ’ নামের একটি প্রজেক্টের অংশ হিসেবে এই ক্যাম্পেইনটি চালানো হচ্ছে। ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনকে সাথে নিয়ে এই উদ্যোগ নিয়েছেন স্থানীয় কংগ্রেস পার্টির নেতা ও আইনপ্রণেতা হিবি ইডেন।

নারীর প্রজনন স্বাস্থ্য ভারতে একটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিষয়। এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে দেশটির অন্যতম অগ্রসর রাজ্য কেরালায় এই অবস্থার পরিবর্তন হবে বলে আশা করছেন আয়োজকরা।

‘# ফিল দ্য পেইন’ নামের এই ইভেন্টটি ডিজাইন করেছেন আইনজীবী সান্দ্রা সানি। তার মতে, পিরিয়ড নিয়ে অর্থবহ কথোপকথন শুরু করা ও মানুষের মনোভাব পরিবর্তন করার সবচেয়ে সহজ উপায় এটি।

সূত্র: বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published.