স্বামী রেখে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকা, পালিয়ে গেল প্রেমিক

ভোলার লালমোহন উপজেলায় প্রেমিকের বাড়িতে নবম শ্রেণির এক ছাত্রী এসে হাজির হয়েছেন। এ সময় প্রেমিক বাড়ি থেকে পালিয়ে যান।রোববার (২৮ আগস্ট) বিকেলে ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। এর আগে শনিবার (২৭ আগস্ট) বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ব্যক্তি উপজেলার পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের নেছার ডোবাইয়ের ছেলে পিয়াস। জানা গেছে, পিয়াসের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইমোতে প্রেম হয় ওই ছাত্রীর। পরে তাদের মধ্যে মোবাইলে কথাবার্তা চলতে থাকে। ইতোমধ্যে ছাত্রীর বাবা-মা ঢাকায় জীবন নামের এক ছেলের সঙ্গে বাল্যবিয়ে দিয়েছেন। তবে বিয়ের পর স্বামীর বাড়িতে অবস্থান করলেও ১৭ দিনের মাথায় শনিবার (২৭ আগস্ট) বিকেলে লালমোহন উপজেলায় প্রেমিক পিয়াসের বাড়ি চলে আসে ওই ছাত্রী। এ সময় সে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায় প্রেমিক।

এদিকে ছাত্রীর বাবা-মায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তাদের মেয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে পালিয়ে আসায় তাকে নিতে চাইছেন না। স্বামী জীবনও তার স্ত্রী পালিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে আসায় ফের ঘরে তুলতে অনীহা প্রকাশ করেন। এ বিষয়ে ছাত্রী বলেন, পিয়াসের সঙ্গে আমার সম্পর্ক আছে। তবে ১৭ দিন আগে তারা বাবা-মা জোর করে তাকে বিয়ে দেন। আমি বিয়েতে রাজি ছিলাম না। বিয়ের পরও পিয়াসের সঙ্গে যোগাযোগ ও ইমোতে প্রতিদিন কথা হতো। ইমোতে পিয়াস তার বাড়ির ঠিকানা দিলে, ঢাকা থেকে একাই চলে আসি এখানে।

পিয়াসের খালাতো ভাই রাফিজ জানান, যে মেয়েটি এসেছেন। তার এখনও বিয়ের বয়স হয়নি। যদি মেয়েটির বয়স হতো ও বিয়ে না হতো তাহলে আমরা পিয়াসের সঙ্গে বিয়ের ব্যবস্থা করতাম। এখন তা আর সম্ভব না। পুলিশ ও মেয়ের অভিভাবকের সঙ্গে যোগাযোগ করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাকসুদুর রহমান মুরাদ জানান, এ ঘটনায় এখনও থানায় কেউ অভিযোগ দেয়নি। এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.