সংসারের খরচ বাঁচানোর সাত কৌশল

দৈনন্দিন জীবনে চাহিদা দিন দিন বাড়ছেই। কিছুতেই রাশ টেনে ধরা যাচ্ছে না সংসারের খরচের। আয়ের তুলনায় ব্যয়ের মিল নেই। তাই মাস শেষে ভোগান্তিতে পড়ছেন অনেকে। কিন্তু একটু চেষ্টা করলেই আপনি আপনার প্রতি মাসের খরচ যেমন কমিয়ে আনতে পারেন, তেমনি পারেন সেই টাকা থেকে কিছুটা আপনার ভবিষ্যতের জন্যে সঞ্চয় করতে! কীভাবে সংসারের খরচ কমাবেন? তার জন্য প্রয়োজন কিছু টিপস-
খরচের হিসাব

মাত্র ৫ থেকে ১০ টাকা ভেবে তার হিসেব অনেকেই রাখেন না। চা কিংবা কফির খরচকে ব্যয়ের খাতে ধরেন না। অথচ ছোট অংকের এই খরচগুলোই মাস শেষে বড় আকার ধারণ করে। তাই প্রতিদিনের খরচের হিসাব রাখুন। প্রয়োজনে খাতায় লিখে রাখুন। এতে মাসের শেষে বুঝতে পারবেন কোন খাতে কত খরচ করেছেন আপনি। কোন খরচটি কমানো সম্ভব তাও জানতে পারবেন।

সাইকেলে চড়ার অভ্যাস করুন
বাড়ির বাইরে বের হলে কিংবা কর্মক্ষেত্রে যাওয়ার ক্ষেত্রে রিকশা বা বাস ব্যবহার করেন অনেকে। ১০ কিলোমিটারে কম পথ হলে কিন্তু সহজেই সাইকেল চালিয়ে যেতে পারেন। এতে শারীরিক ব্যায়াম যেমন হবে, তেমনি বাঁচবে ভাড়াও।

মূল্যছাড়ের দোকান থেকে কেনাকাটা করুন
দামি ব্র্যান্ডের পোশাক পরতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু প্রসঙ্গ যখন সংসারের খরচ কমানো, তখন এটি কিছুদিন এড়িয়ে চলতে পারেন। নামকরা ব্র্যান্ডের পোশাক না কিনে কিছুটা কমদামি পোশাক কিনুন। সুপার মার্কেট থেকে প্রয়োজনীয় জিনিস না কিনে বাজার থেকে কেনাকাটা করুন। এতে মাসের খরচ কমবে।

বাসার খাবার অফিসে খান
যদি কর্মক্ষেত্রে খাওয়ার ব্যবস্থা থাকে তবে তো হলোই। কিন্তু সেই ব্যবস্থা না থাকলে অনেকে হোটেলে দুপুরের খাবার খেয়ে থাকেন। বাসা থেকে দুপুরের খাবার নিতে চেষ্টা করুন। খরচ কিছুটা হলেও কমবে।

মাটির ব্যাংকে টাকা জমান
এখন আর মাটির ব্যাংকে টাকা জমানোর চল নেই। তবে এটি কিন্তু অর্থ জমানোর ক্ষেত্রে বেশ কার্যকর। একটি মাটির ব্যাংক বা জারে রোজ কিছু টাকা জমান। মাসশেষে কিছুটা সঞ্চয় হবে।

বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হোন
সংসারের খরচ কমাতে চাইলে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে। ঘর থেকে অল্প সময়ের জন্য বের হলেও বাতি নিভিয়ে রাখুন। এসির মাত্রা অল্প কমান। অপ্রয়োজনে বাহারি বাতি জ্বালানো বন্ধ করুন। সাধারণ বাল্বের পরিবর্তে এনার্জি সেভিংস বাতি ব্যবহার করুন। এতে বিদ্যুৎ বিল কমে আসবে।

বাইরে খাওয়া কমান
প্রিয়জনের সঙ্গে ডিনার ডেট বা বন্ধুদের সঙ্গে হ্যাং আউটে যেতে পছন্দ করেন। সংসারের খরচ কমাতে চাইলে, এটি বাদ দেওয়ার বিকল্প নেই। বাইরে খাবারের একটি বড় বিল চলে আসে। তার চেয়ে বরং ঘরে কিছু রান্না করে খান। এতে টাকা বাঁচবে।

সংসারে নানা খরচ থাকবেই। কোনটি অবশ্যই প্রয়োজনীয় আর কোনটি না হলেও চলে তার তালিকা করুন। খরচের ব্যাপারে কিছুটা সাশ্রয়ী হোন। এতে সংসার সামলানো সহজ হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.