জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে টানা ৭ দিন অনশন করে হাসপাতালে কলেজছাত্র

জ্বালানি তেলের দাম কমাতে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে টানা ৭ দিন ধরে অনশন করে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন আল-আমিন (আটিয়া) নামের এক কলেজছাত্র। টানা ১৭০ ঘণ্টা অনশনের পর অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।আল-আমিন মিরপুর বাঙলা কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী। জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে প্রেস ক্লাবে গুরুতর অসুস্থ

হয়ে পড়েন আল-আমিন। দুই ঘণ্টা জ্ঞান ছিল না তার। তার শারীরিক অবস্থা আরও খারাপ হলে দুপুরে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মোবাইল ক্লিনিক সেখানে গিয়ে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, আল-আমিন

শারীরিক ও মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছেন। টানা অনশনের কারণে তার মধ্যে নানা চাপ তৈরি হয়েছে। সব মিলে তার মধ্যে মানসিক অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে।এর আগে ১৬ আগস্ট প্রতি লিটার জ্বালানি তেলের দাম ৮০ টাকার নিচে আনার দাবিতে তিনি অনশনে বসেন।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি বলেছিলেন, জ্বালানির অযৌক্তিক ও অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কারণে কৃষি উৎপাদনসহ সব ধরনের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। শিক্ষার্থীদের পরিবারে মাসিক আয় না বাড়লেও

পরিবহন ভাড়াসহ সব খরচ বেড়ে চলেছে। এভাবে চলতে থাকলে ভবিষ্যতে কৃষি খাতসহ অন্য উৎপাদনশীল খাতগুলো উৎপাদনের স্বয়ংসম্পূর্ণতা হারাবে। কিন্তু সরকারের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের টনক নড়েনি।আল আমিন ছাত্র অধিকার
আন্দোলনের সঙ্গেও যুক্ত। ২১ আগস্ট জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গিয়ে তার এ আন্দোলনে সংহতি জানান গণস্বাস্থ্য

কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী। এছাড়া আন্দোলনের প্রতি সংহতি জানিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি–পেশার মানুষ।আল আমিন বলেন, গত এক সপ্তাহ ধরে অনশন করে অসুস্থ হয়ে পড়েছি। এখন কিছুটা সুস্থ হয়েছি। দাবি না মানা পর্যন্ত এ অনশন চলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.