যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যে একটি বাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৩ শিশুসহ অন্তত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে আগুন নেভাতে আসা ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে এলে সেই দলের একজন কর্মী দেখতে পান, আগুনে নিহতরা সবাই তার নিজের পরিবারেরই সদস্য।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) নেস্কোপেক ভলান্টিয়ার ফায়ার কোম্পানির কর্মী হ্যারল্ড বেকার বার্তা সংস্থা এপি’কে জানিয়েছেন, নিহতরা হলেন তার ছেলে, মেয়ে, শ্বশুর, শ্যালক, শ্যালিকা, তিন জন নাতি-নাতনি এবং অন্য দুই আত্মীয়। এর মধ্যে তার ছেলে ডেলও রয়েছেন, যিনি নিজেও একজন ফায়ার ফাইটার।

তিনি জানান, আগুনে মারা যাওয়া তিন শিশু এই বাড়িতে থাকে না, তারা এই গ্রীষ্মেই বেড়াতে এসেছিল।
শুক্রবার স্থানীয় সময় রাত ২টা ৩০ মিনিটে ফিলাডেলফিয়ার উত্তর-পশ্চিমে ৯৫ মাইল (১৫০ কিলোমিটার) নেস্কোপেকের এক গ্রামে আগুনের সূত্রপাত হয়।

বেকার জানান, ঘটনাস্থলে আসা ফায়ার সার্ভিসের গাড়িগুলোর প্রথম ইঞ্জিনেই ছিলেন তিনি এবং রাস্তার মোড় নেয়ার সময়ই তিনি বুঝতে পারেন এটি কোন বাড়ি। পরে সেখানে তারা বাড়ির ভেতরে থাকাদের বের করে আনার চেষ্টা করেন, কিন্তু আগুনের তীব্রতা এত বেশি ছিল যে তা আর সম্ভব ছিল না।

পেনসিলভেনিয়া রাজ্য পুলিশ নিহতদের মধ্যে ৬ জনের মরদেহের পরিচয় নিশ্চিত হতে পেরেছে; তবে এখন পর্যন্ত ৫, ৬ ও ৭ বছর বয়সী তিন শিশুকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।পুলিশ এখনও পর্যন্ত ডেল বেকার (১৯), স্টার বেকার (২২), ডেভিড ডাউবার্ট সিনিয়র (৭৯), শ্যানন ডাবার্ট (৪২), লরা ডাবার্ট (৪৭) এবং মারিয়ান স্লুসার (৫৪) কে শনাক্ত করতে পেরেছে।

বাড়ির বারান্দা থেকেই আগুনের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে একটি ফৌজদারি তদন্ত শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ।পেনসিলভেনিয়ার গভর্নর টফ উলফ এক টুইটে বলেছেন, এই ট্র্যাজেডি তার হৃদয় ভেঙে দিয়েছে।

সূত্র: বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published.