টানা ২৫ বছর হাতের নখ না কেটে রেখে দিয়েছিলেন ডায়ানা আর্মস্ট্রং নামে এক নারী। সেই নখ এখন ৪২ ফুট লম্বা। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটার বাসিন্দা। তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বড় নখের অধিকারী, যা জায়গা করে নিয়েছে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে। সম্প্রতি গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম উঠেছে ডায়ানা আর্মস্ট্রং- এর। ৬৩ বছর বয়সী ডায়ানার দুই হাতের নখের দৈর্ঘ্য এখন এক হাজার ৩০৬.৫৮ সেন্টিমিটার বা ৪২ ফুট ১০.৪ ইঞ্চি। এই মাপ নেয়া হয়েছে এই বছর অর্থাৎ ২০২২ সালের ১৩ মার্চ। মাপ অনুযায়ী এটাই বিশ্বের সবচেয়ে বড় নখ।

গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের তথ্য অনুযায়ী, এই রেকর্ড গড়তে তাকে ২৫ বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে। শেষবার তিনি ১৯৯৭ সালে নখ কাটেন। এরপর টানা ২৫ বছর ধরে তিনি নখ কাটেন না, যা আস্তে আস্তে বড় হয়ে এখন বিস্ময়কর হয়ে উঠেছে। এই নখের কারণে ডায়ানাকে কোনো ঝামেলাও পোহাতে হয় না বলে জানান। বরং স্বাভাবিকভাবেই সব কাজ করতে পারেন তিনি। শুধু তাই নয়, বাচ্চাদেরও সঠিকভাবে লালন-পালন করছেন ডায়ানা। ডায়ানা বলেন, শুরুতে আমার সিদ্ধান্ত সবাইকে অবাক করে। পরে আমি নখ রাখা শুরু করলে তারা হতাশ হন। বিশ্ব রেকর্ডের খবরটি তাই তাদের জানাইনি। তাছাড়া সবকিছুই স্বাভাবিকভাবে চলছে। এখনো আমি বড় নখ নিয়ে স্বাভাবিক জীবনযাপন করছি। যে কাজগুলো হাতে করতে পারি না, তা পা দিয়েই করে নেই। তাছাড়া আমার সন্তানরাও আমাকে সহযোগিতা করে।

বিশ্ব রেকর্ডের পর ডায়ানার নখ না কাটার সিদ্ধান্তে আরো অটল রয়েছেন। ডায়ানা জানান, নখ কাটার কোনো ইচ্ছে তার নেই। তিনি আগের মতোই এগুলোর যত্ন নেবেন। নখে নেইলপলিশও লাগান। প্রায় ২০ বোতল নেইলপলিশ লাগাতে হয় তার নখে। কাজটিতে তিনি বিরক্ত হন না। বরং উপভোগ করেন।

সূত্র: গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস

Leave a Reply

Your email address will not be published.