শরীফুল রাজ ও বিদ্যা সিনহা মিম অভিনীত ‘পরাণ’ দেখবেন বলে মিরপুরে স্টার সিনেপ্লেক্সের সনি স্কয়ারে এসেছিলেন এক বৃদ্ধ। তবে ‘লুঙ্গি পরা’র কারণে নাকি তাকে টিকিট দেয়া হয়নি। গতকাল বুধবার বিকেলে এমন ঘটনা ঘটে।

বাংলা চলচ্চিত্র নামে চলচ্চিত্রবিষয়ক একটি গ্রুপে সেই বৃদ্ধের ছবি ও ভিডিও পোস্ট করে ঘটনা তুলে এনেছেন কাওসার আহমেদ নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী। তার পোস্টটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে; কেউ কেউ এটিকে

বৈষম্য হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।ঘটনার পরেই সেই বৃদ্ধের খোঁজ করেন ‘পরাণ’ সিনেমার নায়িকা মিম এবং নায়ক রাজ। অবশেষে পাওয়া গেলো সেই বৃদ্ধে পরিচয়। সেই ব্যক্তির নাম আমান আলী সরকার, তার গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জ। ঢাকায় ছেলের মিরপুরের বাসায় বেড়াতে এসে সনি স্কয়ারে গিয়েছিলেন।

ঘটনার বর্ণনা করে এ প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, কাউন্টারে গেলে সেই মুরব্বির কাছে টাকা চাওয়া হলে তিনি ৫০০ টাকার একটি নোট দিলেন। পরে ওনাকে টিকিট বিক্রেতা বললেন, টিকিটের দাম ৩৫০ টাকা, আপনি টিকিট নেবেন? মুরব্বি বললেন, হ্যাঁ। তখন মুরব্বির মুখ দেখে টিকিট বিক্রেতা বলেন, আপনি কী পরে আছেন? তিনি বললেন, লুঙ্গি।

টিকিট বিক্রেতা বললেন, লুঙ্গি পরে আমাদের এখানে আলাউ নাই। লুঙ্গি পরে ঢোকা যাবে না। আমি বললাম, লুঙ্গি পরে ঢোকা যাবে না, এটা কী সিস্টেম? তখন তিনি বললেন, এটা আমাদের নিয়ম। ২০০১ সাল থেকে এই নিয়ম চলছে সনিতে। আমার সঙ্গে রুড আচরণ করেছেন।

আমান আলীর একটি ভিডিও ধারণ করেছেন কাওসার আহমেদ। সেই ভিডিওতে তিনি তাকে জিজ্ঞাসা করেন, আপনার কাছে টিকিট বিক্রি করেনি কেন? আমান আলী বলেন, আমি লুঙ্গি পরা। লুঙ্গি পরেছি বলে আমার কাছে টিকিট বিক্রি করবে না। কিছুক্ষণ পর তাকে আবার প্রশ্ন করা হয়, তাহলে এখন সিনেমা দেখবেন কীভাবে? লুঙ্গি পরা ব্যক্তি বলেন,

এখন চলে যাব। চলে যাচ্ছি।ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর তুমুল সমালোচনার মুখে স্টার সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে এ ঘটনাকে ভুল–বোঝাবুঝি হিসেবে দাবি করেছে। আমান আলীকে সিনেমা দেখতে সনি স্কয়ারে আমন্ত্রণ জানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.