ছিনতাইকারী ধরে পেটানো জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পারিসা আক্তারের ঘটনা এখন সবার মুখে মুখে। ব্যতিক্রম এ সাহসী ঘটনায় প্রশংসায় ভাসছেন তিনি। পারিসাকে তার সাহসিকতার জন্য সম্মাননা জানিয়েছে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। সেই সাথে তাকে চাকরিও দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।
পারিসাকে চাকরি দিয়েছে সারাবছর একরেট লিমিটেড নামে একটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান। সম্প্রতি একটি গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানিয়েছেন পারিসা নিজেই। তিনি বলেন, অন্যায় হতে দেখলে নারী-পুরুষ সবারই নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী এগিয়ে যাওয়া উচিত। আর এটি পার্ট টাইম চাকরি হওয়ায় পড়াশোনার পাশাপাশি কাজটি করতে তার অসুবিধা হবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।

জবি শিক্ষার্থীর এই ভিন্নধর্মী উদ্যোগ ও সাহসিকতাকে সাধুবাদ জানিয়ে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়ামুল করিম বলেন, উনি যেভাবে সাহস দেখিয়ে সমাজকে প্রতিবাদ জানানোর একটা মেসেজ দিয়েছেন। সমাজে এই ধরনের মানুষ যে অনেক দরকার আমি সেই জন্য এই পদক্ষেপটা নিয়েছি যেটা খুবই সামান্য। এভাবে অন্যায়ের বিরুদ্ধে তরুণেরা এগিয়ে আসবে বলে আশা করি।

উল্লেখ্য, গবেষণার কাজে গত বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সদরঘাট থেকে মিরপুর চিড়িয়াখানা গিয়েছিলেন পারিসা। সারা দিন কাজ করে তানজিল পরিবহনের বাসে ফেরার সময় কারওয়ান বাজার এলাকা থেকে এক ছিনতাইকারী তার মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেন। ওই ছিনতাইকারীকে ধাওয়া করে ধরতে পারেননি তিনি।

তবে আরেকজনের মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর সময় এক ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলেন। কৌশলে ওই ছিনতাইকারীর এক সহযোগীকেও আটক করা হয়। পরে দুই ছিনতাইকারীকে পিটিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেন ওই শিক্ষার্থী। পরে তিনি তেজগাঁও থানায় জিডি করেন এবং গত রোববার তিনি মামলা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.