বাবা-মায়েরা তাদের সন্তানের নামকরণের সময় অনেক চিন্তা-ভাবনা করেন, আদরে-আবদারে সন্তানের নাম রাখেন। সে ক্ষেত্রে কেউ কেউ একাধিক নামকরণও করেন। কিন্তু তাই বলে ২৭ রকমের মধ্যম নামকরণ!সম্প্রতি এমনই এক বাবার খোঁজ পাওয়া গেছে যিনি ছেলের নামের মাঝের অংশে প্রায় ২৭টি নাম রেখেছেন। ফলে নিজেই ছেলের নাম মনে রাখতে

পারেন না তিনি।ক্যালিফোনিয়া ভিত্তিক সামাজিক প্রশ্ন এবং উত্তরের মাধ্যম কিউরার সঙ্গে কথোপকথন চলাকালে ঐ বাবা জানিয়েছেন, বিগত সত্তরের দশকে যখন তার প্রথম পুত্র জন্ম নেয় তখন তারা হিপি সম্প্রদায়ের পূর্ণাঙ্গ সদস্য ছিলেন। অন্যান্য হিপিদের দ্বারা গঠিত এক বিশাল পরিবারের সদস্য ছিলেন তারা।

ঐ ব্যক্তি বলেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে আমরা আমাদের সন্তানকে অনন্য কিছু নাম দিতে চাই, এমন কিছু যা এ বিশাল পরিবারের ভালোবাসাকে প্রতিফলিত করবে।তাদের সন্তানের প্রথম নাম রাখা হয়েছিল ‘রেইন’। এরপর তারা সিদ্ধান্ত নেন, তাদের প্রিয় বন্ধুদের থেকে একটি একটি করে নাম নিয়ে সন্তানের মধ্যম নাম রাখবেন। এইভাবে তারা

যেকোনো সময়ে যেকোনো নাম বেছে নিয়ে ডাকতে পারবেন। এর কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেছেন, আমরা চেয়েছিলাম যে আমাদের সন্তান তার পছন্দ অনুযায়ী কোনো নাম বেছে নিক।পরবর্তীতে ছেলের সব নাম মনে রাখতে পারেননি বাবা। তবে কয়েকটি নাম খুব চেষ্টা করে পুনরুদ্ধার করেছিলেন- যেমন, রেইন, স্টর্ম, থান্ডার, ক্লাউড, ফায়ার, ফ্লাইট,

অ্যামব্রোস, এলিজা, ফুড, বার্ড, হক, উইন্ড, ওসান ইত্যাদি। তবে তিনি এটুকু মনে করতে পেরেছেন যে তিনি মোট ২৭টি নাম রেখেছিলেন। প্রত্যেকটি তাদের নতুন নির্বাচিত পরিবারকে সম্মান জানিয়ে রাখা হয়েছিল।
পরবর্তী সময়ে ওই বাবা তার ছেলেকে বলেছিলেন যে সে নিজের পছন্দ মতো নাম বেছে নিতে পারে এবং জীবনে ওই

নামে প্রতিষ্ঠিত হতে পারে। তিনি জানিয়েছেন, আমরা তাকে আশ্বস্ত করেছিলাম যে এগুলো তার নাম এবং সে এগুলোর মধ্যে যে কোনো একটিকে বেছে নিতে পারে বা নিজের থেকে কোনো নাম তৈরি করে নিতে পারে।পরে চার বছর বয়সে তার সন্তান নিজের জন্য নিজেই একটি নাম বেছে নেয়। সেটি হলো ‘বেটি ক্রোকার’।

Leave a Reply

Your email address will not be published.