ভারতের মধ্যপ্রদেশের শাহোদল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে এক যুবককে মায়ের মরদেহ মোটরসাইকেলে দড়ি দিয়ে বেঁধে বাড়িতে নিয়ে যেতে দেখা যায়, যা ভিডিও করে ছেড়ে দেওয়া হয় সামাজিক মাধ্যমে। সোমবারের এ ঘটনা অল্প সময়ে ভাইরাল হয়। দেশজুড়ে মধ্যপ্রদেশের স্বাস্থ্যব্যবস্থা নিয়ে সৃষ্টি হয় তীব্র সমালোচনা। জানা গেছে, আনুপ্পুর জেলার গুদারু গ্রাম থেকে অসুস্থ মা জয়মন্ত্রী যাদবকে শাহোদল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান সুন্দর যাদব নামের এক যুবক। শনিবার দিনগত রাতে মায়ের মৃত্যু হলে মরদেহ গ্রামে নিয়ে যাওয়ার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে শবযান চান সুন্দর। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, গুদারু গ্রামে মরদেহ নিয়ে যেতে ৫ হাজার রুপি দিতে হবে।

এদিকে টাকা জোগাড় করতে না পারায় শেষমেশ ১০০ রুপি দিয়ে কাঠের পাটাতন কিনে তার ওপর মরদেহ রেখে দড়ি দিয়ে বাঁধেন সুন্দর। এভাবেই মোটরসাইকেলে করে মায়ের মরদেহ হাসপাতাল থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরের গ্রামে নিয়ে যান তিনি। সুন্দর যাদব বলেন, বুকে ব্যথা অনুভব করায় মাকে প্রথমে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে মাকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। দুই হাসপাতালেই চিকিৎসক ও নার্সদের গাফিলতির কারণে আমার মা মারা গেছেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, শাহোদল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসাসেবা সরবরাহের সব ব্যবস্থা থাকলেও এখান থেকে যথাযথ চিকিৎসা মেলে না। এতে তারা ক্ষুব্ধ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.