লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে শ্বশুরবাড়ি থেকে আকলিমা আক্তার নামে এক গৃহবধূ নিখোঁজ হয়েছেন। গত বুধবার রাতে রায়পুর উপজেলার কেরোয়া ইউপির কালুপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে ওই গৃহবধূর পরিবারের দাবি, তাকে যৌতুকের জন্য হত্যার পর লাশ গুম করেছে স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। অন্যদিকে স্বামীর দাবি, তুচ্ছ কথাকে কেন্দ্র করে আকলিমা পালিয়ে গেছেন।

নিখোঁজ গৃহবধূর মা বিলকিস বেগম জানান, প্রায় ৮ মাস আগে আকলিমার সঙ্গে মোহাম্মদ হাসানের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের দাবিতে আকলিমাকে প্রায়ই নির্যাতন করতেন স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। আকলিমা বাবার বাড়ি আসতে চাইলে বাধা দিতেন হাসান। আকলিমা মোবাইল ব্যবহার করত না। ২৭ জুলাই রাতে মেয়ের খোঁজ নিতে তিনি হাসানকে ফোন করলে তিনি ধরেননি। পরে হাসান

ফোন দিয়ে তাদের বাড়িতে আসতে বলেন। একপর্যায়ে রাত ১১টার দিকে তারা হাসানের বাড়িতে গিয়ে আকলিমার খোঁজ করেন। আপনাদের বাড়িতে বেড়ানোর কথা বলে আকলিমা বাসা থেকে বের হয়ে গেছে বলে জানান হাসান। এ ঘটনায় পরদিন তিনি থানায় জিডি করেন। কিন্তু

মেয়ের কোনো সন্ধান পাননি। তাই থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।তিনি আরো জানান, হাসানসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন আকলিমাকে হত্যা করে লাশ গুম করেছে। হাসান ও তার মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই সব জানা যাবে।রায়পুর থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গৃহবধূ

আকলিমাকে নিখোঁজের বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। হঠাৎ একজন মানুষ এভাবে নিখোঁজ হয়ে যাবে, তা হতে পারে না। আসলে কী ঘটেছে সেটি আমরা তদন্ত করে দেখছি। উভয়পক্ষকে নিয়েও থানায় বৈঠক করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.