জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ৫৫ বছরের বেলায়েত শেখ।
শনিবার রাত ৮টায় গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন তিনি। বেলায়েত শেখ বলেন, ‘জাবিতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার উদ্দেশ্যে শনিবার বেলা ১১টায় বাসা থেকে বের হই। সে উদ্দেশ্যে গাজীপুরের শ্রীনগর উপজেলা থেকে একটি বাসে উঠি। চালক শুরু থেকেই বাসটি বেপরোয়া গতিতে চালাচ্ছিলেন। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাসটি গাজীপুর সদর উপজেলার হোতাপাড়ায় পৌঁছলে দুর্ঘটনা ঘটে। এতে আমি মেরুদণ্ডে ব্যথা পেয়েছি।’

আহত অবস্থায়ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছেন বেলায়েত। রোববার ‘সি’ ইউনিটভুক্ত কলা ও মানবিক অনুষদ এবং বঙ্গবন্ধু তুলনামূলক সাহিত্য ও সংস্কৃতি ইনস্টিটিউটের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন তিনি। বেলায়েত শেখ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় আমার জন্য বেশি সুবিধার। বিশেষ করে যাতায়াতের জন্য। আমি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা বিভাগে পড়তে চাই।

সাংবাদিকতায় পড়ার আগ্রহের বিষয়ে তিনি বলেন, আমি ৮ বছর ধরে দৈনিক করতোয়া পত্রিকার শ্রীপুর প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। এ জন্য সুযোগ পেলে সাংবাদিকতা বিভাগে পড়তে চাই। সাংবাদিকতার একাডেমিক জ্ঞান নিতে চাই। গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় বেলায়েত শেখের বাড়ি। দুই ছেলে ও এক মেয়ের জনক তিনি। ১৯৮৩ সালে তিনি এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। সে সময় বাবা গুরুতর অসুস্থ হয়ে যাওয়ায় সংসারের হাল ধরতে হয়েছে তাকে। পরে আর শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারেননি। ২০১৭ সালে ৫০ বছর বয়সে ভর্তি হন নবম শ্রেণিতে। এ বছর ঢাকা মহানগর কারিগরি কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি-ভোকেশনাল) জিপিএ ৪.৪৩ নিয়ে পাস করেন।

২০১৭ সালে ঢাকার বাসাবোর দারুল ইসলাম আলিম মাদরাসা থেকে ৪ দশমিক ৪৩ জিপিএ নিয়ে তিনি এসএসসি পাস করেন। এরপর ২০২১ সালে রামপুরার মহানগর কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে জিপিএ ৪ দশমিক ৫৮ পেয়ে এইচএসসি পাস করেন। বয়সের বাধা পেরিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন ৫৫ বছর বয়সী গাজীপুরের বেলায়েত শেখ। এর আগে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় চান্স পাননি। এছাড়া রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে ফলাফলের অপেক্ষায় রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.