এবার শতাধিক তরুণীর সঙ্গে প্রেম ও প্রতারণার অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে মুন্সীগঞ্জ গোয়েন্দা পুলিশ। গত শুক্রবার ২৯ জুলাই সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার পানাম আমতলী এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে নগদ ৪০ হাজার টাকা ও পর্নোগ্রাফির কাজে ব্যবহৃত একটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। অভিযুক্ত যুবকের নাম মো. নাদিম হাসান (২৩)। সে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার দালালপাড়া গ্রামের মৃত কাদির মিয়ার ছেলে।

গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নাদিম হাসান সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক, ইমোতে একাধিক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে প্রায় শতাধিক নারীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। পরে বিভিন্ন কৌশলে তরুণীদের ফাঁদে ফেলে একান্ত ভিডিও ও আপত্তিকর ছবি ধারণ করতেন। পরে এসব ছবি দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা হাতিয়ে নিতেন।

মুন্সীগঞ্জ ডিবি পুলিশের ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ভূক্তভোগী এক নারীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নাদিম হাসানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। পরে তিনি আদালতে তরুণীদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে প্রতারণার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

তিনি আরও বলেন, এ পর্যন্ত প্রায় শতাধিক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে পরে আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ধারণ করে তাদের কাছ থেকেই ব্ল্যাকমেইলের মাধ্যমে অর্থ আদায় করে আসছিলেন। আটকের সময় নাদিমের কাছ থেকে নগদ ৪০ হাজার টাকা ও পর্নোগ্রাফির কাজে ব্যবহৃত একটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। তার মোবাইলে অসংখ্য আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.