১১ মাস বয়সী শিশু আল আমিনকে হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন তার বাবা সামছুর উদ্দিন। থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেও খোঁজ পাচ্ছিলেন না সন্তানের। এমন সময় জানতে পারেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি শিশু আল আমিনকে পেয়ে বাবা-মায়ের খোঁজ চেয়ে মাইকিং করছেন। হারিয়ে যাওয়ার ৪৮ ঘণ্টা পর সন্তানকে ফিরে পেয়ে সামছুর উদ্দিন বলেন, আল্লাহ আপনার ভালো করুক। আমি পুলিশের কাছে ঋণী হয়ে গেলাম। সারাজীবন মনে থাকবে। শুক্রবার দুপুরে হারিয়ে যাওয়া শিশুকে মা-বাবার কোলে তুলে দেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো. সাদেকুর রহমান।

থানা সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ডাকবাংলার সামনে একটি শিশুকে কুড়িয়ে পান ওসি মো. সাদেকুর রহমান। এরপর শিশুটিকে নিজের কাছে রেখে তার বাবা-মাকে খোঁজার জন্য মাইকিংয়ের ব্যবস্থা করেন। পরে তিনি জানতে পারেন সুধারাম মডেল থানায় শিশু হারানোর ঘটনায় জিডি করেছেন নোয়াখালী ইউনিয়নের আবদুল মালেকের ছেলে সামছুর উদ্দিন। শিশুটির বাবাকে ফোন করেন ওসি মো. সাদেকুর রহমান। এরপর থানায় এসে সামছুর উদ্দিন শিশুকে গ্রহণ করেন।

শিশু সন্তানকে পেয়ে সামছুর উদ্দিন বলেন, আল আমিন হারিয়ে যাওয়ার পর আমি ২৭ জুলাই সুধারাম মডেল থানায় একটি জিডি করি। আজ তাকে ফিরে পেয়েছি। কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো. সাদেকুর রহমান বলেন, শিশুটিকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে পেরে আনন্দিত হয়েছি। শিশুটির উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.