এবার ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকেও ঢুকতে দেওয়া হয়নি কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ভেতরে। স্টেশনে প্রবেশের জন্য বারবার নিরাপত্তা বাহিনীর প্রতি অনুরোধ জানান গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা। পরে তিনি ভেতরে প্রবেশ করতে না দেওয়া পর্যন্ত স্টেশনের বাইরে অবস্থান নিয়ে থাকার ঘোষণা দেন। আজ রবিবার ২৪ জুলাই বিকেল সোয়া ৫টার দিকে মহিউদ্দিন রনিকে নিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন

ম্যানেজারের সঙ্গে দেখা করার জন্য হুইল চেয়ারে বসে যেতে চাইলে তাকে বাধা দেওয়া হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় গেট। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ডা. জাফরুল্লাহ গেটের বাইরে অবস্থান করছিলেন। এ সময় সাংবাদিকদের ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, প্রতিটি ভালো কাজের প্রতি আমাদের সমর্থন থাকে। আমি সম্পূর্ণ ব্যক্তিগতভাবে এখানে এসেছি। প্রবেশের অনুমতি না দেওয়া পর্যন্ত এখানেই অবস্থান নিয়ে থাকবো। এর আগে বিকেল পৌনে ৫টার পর স্টেশনে আসেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

আজও বাধার মুখে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ঢুকতে পারেননি রনি ও তার সহযোগীরা। বিকেল ৪টার দিকে স্টেশনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে আসেন রনিসহ অন্য শিক্ষার্থীরা। তবে তারা ঢুকতে পারেননি। তাদের স্টেশনের ভেতরে ঢুকতে না দিতে সব ফটকের সামনে অবস্থান নেন রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা। তারা সবগুলো ফটক বন্ধ করে দেন। তবে টিকিট দেখিয়ে সাধারণ যাত্রীদের স্টেশনের ভেতরে প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী।

পরে রনি ও তার সহযোগীদের প্রতি সমর্থন জানাতে আসেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। এদিন রনির ৬ দফা দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থীরা আসেন। স্টেশনের সবকটি ফটক বন্ধ থাকায় তারা স্টেশনের বাইরে রিকশাস্ট্যান্ড এলাকায় বসে পড়েন। সেখানে তারা দুর্নীতিবিরোধী স্লোগান দিতে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.