বিদ্যা সিনহা সাহা মিম। লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার ২০০৭ প্রতিযোগিতায় তিনি প্রথম-স্থান লাভ করেন। একই বছরে হুমায়ুন আহমেদ পরিচালিত আমার আছে জল চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তার চলচিত্রে অভিষেক হয়। জোনাকির আলো চলচ্চিত্রে অভিনয় করে ৩৯তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে মৌসুমীর সঙ্গে যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার অর্জন করেন। এবারের ঈদে মিমের অভিনীত ছবি ‘পরাণ’ মুক্তি পেয়েছে। মুক্তির পরেই সিনেমাটি নিয়ে দর্শকদের আগ্রহ বেড়েই চলেছে। চলতি সপ্তাহ থেকে বাড়ানো হয়েছে ছবিটির শো। দর্শকমহল থেকে শুরু করে সিনেমাবোদ্ধা সবাই ‘পরাণ’ এর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। বিয়ের পরে মিমের এটাই মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম ছবি। ২০২২ সালের শুরু দিকে হিন্দু সনাতন রীতি মেনেই বহুদিনের প্রেমিক সানি পোদ্দারকে বিয়ে করেন মিম। স্বামী পেশায় একজন ব্যাংক কর্মী।

এ বছরটা যেন মিমের ভাগ্যরাশি একদম তুঙ্গে। কেননা বিয়ে, সুপারহিট সিনেমা মুক্তি সবই এই বছরই। শুধু এখানেই থেমে গেলে হতো, কিন্তু আরো একধাপ এগিয়ে অবশেষে মিম পেলেন স্নাতক এবং স্নাতকোত্তরের সার্টিফিকেট। বিষয়টি উল্লেখ করে মিম তার সোশ্যাল হ্যান্ডেলে জানান, আমার জীবনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন আজকে। শিক্ষাজীবন অফিশিয়ালি শেষ হওয়ার দিন আজ, আজ আমার কনভোকেশনের দিন। সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি থেকে বাংলা সাহিত্যে অনার্স ও মাস্টার্স শেষ করি আমি। কনভোকেশনের এই অনুষ্ঠান ২০২০ সালে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা মহামারীর ফলাফল আমরা সবাই জানি।
এরপরেও Better Late than Never. অবশেষে কনভোকেশন হচ্ছে।

মিম আরো লিখেন, আমি আমার সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটিকে ধন্যবাদ জানাই এরকম একটি আয়োজনের জন্য। ধন্যবাদ জানাই আমার প্রতিটি শিক্ষককে যারা আমার পড়াশোনা শেষ করতে আমাকে সাহায্য করেছেন। মিডিয়াতে কাজ করে একই সাথে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারটা খুব একটা সহজ নয় অবশ্যই। ধন্যবাদ জানাই আমার সেসব সহপাঠীদের যারা পড়াশোনা বিষয়ক যেকোনো বিষয় মিস করলেও পরবর্তীতে আমাকে সাহায্য করেছে যেন আমার জন্য পড়াশোনার পথটা সহজতর হয়।

মিম আরো যোগ করেন, এই বছর জীবনের সব প্রাপ্তি মিলিয়ে আমি খুবই খুশি। ২০২২ আমার জন্য খুবই ভালো যাচ্ছে। ধন্যবাদ জানাই সৃষ্টিকর্তাকে। ধন্যবাদ জানাই আমার মা-বাবাকে। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন। সবার জন্য ভালোবাসা।❤️

Leave a Reply

Your email address will not be published.