চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী থানার জিইসি এলাকায় এক গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনা দেখতে পেয়ে জাতীয় জরুরিসেবা ৯৯৯-এ ফোন করে জানিয়েছিলেন রিকশাচালক মো. আবদুল হান্নান। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে এবং ধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। বুধবার (২০ জুলাই) দুপুরে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কমিশনার কার্যালয়ে সিএমপি কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় রিকশাচালক মো.আবদুল হান্নানের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপপুলিশ কমিশনার (অতিরিক্ত ডিআইজি পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) মো. আমির জাফর ও উপপুলিশ কমিশনার (উত্তর) মোখলেসুর রহমান।

গত রোববার (১৭ জুলাই) রাত ১টায় রিকশায় জিইসি এলাকার সাদিয়া’স কিচেনের সামনে থেকে ষোলশহরে দিকে যাচ্ছিলেন ওই গৃহবধূ। এ সময় ৩ যুবক রিকশার গতিরোধ করে ফ্লাইওভারের নিচের একটি অস্থায়ী টং-ঘরের ভেতরে নিয়ে যায়। সেখানে ৬ জন ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে। গৃহবধূর চিৎকার শুনে রিকশাচালক জাতীয় জরুরি সেবার নম্বরে (৯৯৯) ফোন করে পুলিশ পাঠানোর অনুরোধ করেন। ৯৯৯-এর মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে থেকে গৃহবধূকে উদ্ধার করে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.