এবার ঋণে জর্জরিত হয়ে গাড়িতে স্ত্রী-ছেলেকে নিয়ে গায়ে আগুন ধরিয়ে দিলেন রামরাজ ভাট (৫৭) নামে এক ব্যবসায়ী! অগ্নিদগ্ধ হয়ে তিনি মারা গেলেও হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন তার স্ত্রী সঙ্গীতা (‌৫৭)‌ ও ছেলে নন্দন (‌২৫)‌। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের নাগপুরে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার। খবরে বলা হয়, ব্যবসায়ী রামরাজ অনেক দেনা হয়ে গিয়েছিলেন। দেনা মেটাতে না পেরেই স্ত্রী-ছেলেকে নিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) দুপুরের খাবার খাওয়ার জন্য স্ত্রী এবং ছেলেকে হোটেলে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেছিলেন রামরাজ। গাড়িতে করে ছেলে এবং স্ত্রীকে নিয়ে হোটেলের উদ্দেশে রওনাও দেন তিনি। কিন্তু হোটেলে না গিয়ে মাঝপথেই একটি ফাঁকা রাস্তায় গাড়ি দাঁড় করান রামরাজ। স্ত্রী এবং ছেলে তখনও কিছুই বুঝতে পারেননি। আচমকাই গাড়িতে পেট্রল ঢালতে শুরু করেন রামরাজ। এরপর নিজের গায়ে এবং স্ত্রী-ছেলের গায়েও পেট্রল ঢালেন তিনি। পরে গাড়িসমেত সবার গায়ে আগুন লাগিয়ে দেন রামরাজ।

এদিকে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গাড়িটি দাউ দাউ করে জ্বলছিল। তারপরই দু’জন আরোহী (‌রামরাজের স্ত্রী ও সন্তান)‌ কোনোমতে দরজা খুলে বেরিয়ে আসেন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ জানায়, রামরাজের বাড়ি থেকে সুইসাইড নোট মিলেছে। তিনি যে ঋণে জর্জরিত, তা রামরাজ লিখে গিয়েছেন সুইসাইড নোটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.